Skip to main content

Posts

বদলি

অফিসের গাড়ি ছাড়ে ঠিক পাঁচটায়। এক সেকেন্ড আগেও না, পরেও না। কাজ গুছিয়ে নীচে নামতে নামতে প্রায় দেরিই হয়ে যাচ্ছিল। বিল্ডিংয়ের সামনে গাড়িটা দেখে হাফ ছাড়লো জামিল। নীল রঙের টয়োটা হাইএস। দশজনের বসার সিট থাকলেও জামিলদের প্রায়ই বার-তেরো জন বসা লাগে। আজকে কি অবস্থা কে জানে। স্লাইডিং দরজাটা খুললো জামিল।

'উঠে পড়ুন জামিল ভাই, আজকে আপনার জন্য একেবারে মাঝখানের সিট, ভিআইপি বলে কথা!' সদাহাস্য (অনেকটা অতিহাস্য) রাহাত ভাই বললেন একেবারে পিছনের সারি থেকে। দরজার সামনেই বসে থাকা স্বল্পভাষী অর্ণব ঘুরে বসেছে জামিলকে উঠার জায়গা দিতে। জামিলের জন্য জায়গা খালি মাঝের সারির মাঝের সিটে। সারির শেষ সিটে বসে আছে এইচআর এর আফসানা। পাশে বসে পড়লো জামিল। গাড়ি ছেড়ে দিলো তাদের ইপিজেডের অফিস থেকে।

জয়েন করার পর প্রথম দিকে কোনো ম্যাডামের পাশে বসতে অস্বস্তি লাগতো দাড়ি-টুপি ওয়ালা 'হুজুর' জামিলের। সে চেষ্টা করতো এভয়েড করতে, না পারলেও বসত প্রচন্ড অস্বস্তি নিয়ে। কিন্তু এক বছর যেতে এখন আর এতটা খারাপ লাগে না। সব কিছুই গা সওয়া হয়ে যায় সময়ের সাথে। অফিসের প্রয়োজনে আমি অপারগ, নিজেকে বোঝায় জামিল।

- 'কি খবর জামিল সাহেব',…